বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:০২ অপরাহ্ন

প্রতিনিধি নিয়োগ-
ঢাকা সহ সারাদেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সংবাদদাতা নিয়োগ করা হবে। আগ্রহী প্রার্থীরা dailyalochitosokal@gmail.com এ সিভি প্রেরণ করার জন্য অনুরোধ করছি।
শিরোনাম:
চন্দনপাটে টিউবওয়েলে উঠছে গরম পানি

চন্দনপাটে টিউবওয়েলে উঠছে গরম পানি

এম হামিদুর রহমান লিমন, রংপুর ব্যুরো প্রধানঃ

আশ্চর্য হলেও সত্যি। নিরাপদ খাবার পানির জন্য বসানো হয়েছিল সাব মার্সিবাল গভীর টিউবওয়েল। কিন্তু ওই টিউবওয়েলটি চালু করলেই উঠছে গরম পানি। টি প্যাক দিয়ে চা খাওয়ার জন্য যতটুকু গরম পানি লাগে সেরকমই গরম পানি উঠছে। পানি গরম হওয়ায় পাঁচ মিনিটের মধ্যে ফেঁটে যায় প্লাষ্টিকের পাইপ। সেই পানি হাত দিয়ে ছুঁয়ে দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ সেখানে প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছে।

ঘটনাটি ঘটেছে রংপুর জেলার সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের মন্ডল পাড়া গ্রামে। ওই গ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা শফিউল আলম বাবুর বাড়ীতে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে সদর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিস থেকে নিরাপদ ও সুপেয় পানির জন্য ৫শত ৪৫ফিট গভীর একটি সাব মার্সিবাল গভীর টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়। কয়েকদিন ঠান্ডা পানি উঠার পর ওই টিউবওয়েল থেকে গরম পানি বের হওয়া শুরু হয়। এ থেকে রেহাই পেতে একটির পরিবর্তে দুইটি টিউবওয়েল বসানো হয়েছে। তবু পানির কোনো পরিবর্তন নেই।

গতকাল বুধবার সরেজমিনে মন্ডল পাড়া গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগ নেতা শফিউল আলম বাবুর বাড়ীর সামনে ১০-১৫ জন লোক বসে আছেন। এর মধ্যে মুকুল, বদি ও আনজুয়ারা বলেন, একটি বা দুটি নয়, মন্ডল পাড়ার প্রায় ১২/১৩ টির বেশি টিউবওয়েল থেকে দীর্ঘদিন ধরে গরম পানি উঠছে। মুকুল মিয়া বলেন, তবে বাবু ভাইয়ের এই গভীর টিউবওয়েল চালু করলে চাপলে প্রথম এক মিনিট পানি হাতে ছোঁয়া যায়। এরপরই ফুটন্ত গরম পানির মতো পানি বের হতে থাকে। হাতে বা শরীরে লাগালে অনেক সময় ফোসকা পড়ে যায়। মন্ডল পাড়ায় কত দিন থেকে গরম পানি আসছে জানতে চাইলে মোঃ নজরুল ইসলাম নামের একজন বলেন, ‘যখন থেকে বুঝতে শিখি, তখন থেকে মন্ডল পাড়া গ্রামের টিউবওয়েলে গরম পানি বের হতে দেখছি।

মন্ডল পাড়া গ্রামের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে এই পানি অন্য এলাকার পানির মতো খেতে স্বাদ লাগে না। সাবানের পানির মতো পানি অনেকটা পিচ্ছিল এবং গন্ধটাও অন্য রকম। এখানকার মাটির নিচে প্রাকৃতিক গ্যাসের সন্ধান পাওয়া যেতে পারে বলে তাঁদের ধারণা। তবে এ পানি দূষিত কিনা, স্থানীয় বাসিন্দারা জানেন না। এমনকি খবর দেয়ার পরও জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকেও কেউ সেখানে যাননি বা পরীক্ষা করেননি।

শফিউল আলম বাবু অভিযোগ করে বলেন, ঠান্ডা পানি পাবার আশায় উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিসের সাথে ধর্না দিয়ে ৫শত ৪৫ফিট গভীর সাব মার্সিবাল গভীর টিউবওয়েল বসিয়েছি। তবু ঠান্ডা পানি পাওয়া যাচ্ছে না। বরং এই গভীর টিউবওয়েল থেকে আরো বেশী গরম পানি বের হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিসের কর্মকর্তা সরকার সাব্বির আহমেদ বলেন, আমি ওই ঘটনার কথা শুনেছি। নির্বাহী স্যারকে বলেছি। তিনি দ্রুত মাটি ও পানি পরীক্ষার ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

রংপুর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী পঙ্কজ কুমার সাহা বলেন, রংপুরে এটি নতুন সমস্যা। জিওলজিক্যাল সমস্যার কারণে এটি হতে পারে। আমরা বিষয়টি গ্রাউন্ড ওয়াটার সার্কেল কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। আমি দ্রুত সেখানে পরিদর্শনে যাব।

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্ববাবধায়ক প্রকৌশলী (গ্রাউন্ড ওয়াটার সার্কেল) মোঃ সাইফুর রহমান জানান, রংপুরে টিউবওয়েল থেকে গরম পানি বের হওয়ার সংবাদটি আমি পেয়েছি। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি
Design & Developed BY SheraWeb.Com